মুন্নু সিরামিকের ডিভিডেন্ডের অর্থ নিয়ে নয়-ছয়

নিজস্ব প্রতিবেদক

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত মুন্নু সিরামিক কর্তৃপক্ষ শেয়ারহোল্ডারদের ডিভিডেন্ডের অর্থ নিয়ে নয়-ছয় করেছে বলে দাবি করেছেন খোদ কোম্পানিটির নিরীক্ষক। কোম্পানির ২০২২-২৩ অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছেন নিরীক্ষক।

কোম্পানিটির নিরীক্ষক বলেছেন, কোম্পানিটি ডিভিডেন্ডের অর্থ যেমন পৃথক হিসাবে রাখেনি, একইভাবে যে পরিমাণ ডিভিডেন্ড শেয়ারহোল্ডারদের দিয়েছে, তার চেয়ে বেশি অর্থ প্রদানের দাবি করেছে।

নিরীক্ষক জানিয়েছেন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ রেগুলেশনস ২০১৫ এর ধারা ২৮(১) অনুযায়ি তালিকাভুক্ত কোম্পানিতে শেয়ারহোল্ডারদের ডিভিডেন্ড একটি পৃথক ব্যাংক হিসাবে জমা রাখতে হবে। কিন্তু মুন্নু সিরামিকে ৪১ লাখ ৭৩ হাজার টাকার অবন্টিত ডিভিডেন্ড থাকলেও ব্যাংক হিসাবে রয়েছে মাত্র ২০ লাখ ১৬ হাজার টাকা। ডিভিডেন্ড ঘাটতির পরিমাণ ২১ লাখ ৫৭ হাজার টাকা।

কোম্পানি কর্তৃপক্ষ ২০২২-২৩ অর্থবছরে স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডে ১ লাখ ১১ হাজার টাকাসহ মোট ১ কোটি ৭৯ লাখ ৭৬ হাজার টাকার প্রদান করেছে বলে আর্থিক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে। কিন্তু নিরীক্ষক এই সংক্রান্ত ব্যাংক হিসাবে ডিভিডেন্ড প্রদানের পরিমাণ পেয়েছে ১ কোটি ৫৩ লাখ ৯২ হাজার টাকা।

নিরীক্ষক জানিয়েছেন, কোম্পানিটি থেকে ১০ শতাংশ হিসাবে (উদ্যোক্তা/পরিচালক ছাড়া) ১ কোটি ৯৫ লাখ ৪ হাজার টাকার ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করা হয়। যা ইক্যুইটির পরিবর্তন হিসাবে দেখানো হয়েছে। কিন্তু ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত ব্যাংক হিসাবে জমা দেওয়া হয় ১ কোটি ৫১ লাখ ৯১ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির কর্তৃপক্ষ ব্যাংকের ৯১ লাখ ৯৯ হাজার টাকা রয়েছে বলে আর্থিক হিসাবে দেখিয়েছে। তবে এরমধ্যে মুন্নু জুটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের ৪টি ব্যাংক হিসাবে ৮ লাখ ৯২ হাজার টাকা ও মুন্নু প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং এর ২টি ব্যাংক হিসাবে ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা রয়েছে। যেগুলো ২০১১ সালের ২১ নভেম্বর মুন্নু সিরামিকের সঙ্গে মার্জার হয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *